,

রাত পোহালেই ঈদুল আজহা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রতিকূল এই সময়ে আত্মত্যাগের মহান বানী নিয়ে আবারও এসেছে্ ঈদুল আজহা। ঈদ সবার মাঝেই আনন্দের জোয়ার নিয়ে আসে। কিন্তু করোনা মহামারির চলমান পরিস্থিতিতে প্রায় সবার মধ্যেই ঈদ আনন্দের ভাটা পড়েছে।

করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে এবার কোরবানি ঈদের আমেজ একটু ভিন্ন। আনন্দের মাঝে দেখা দিয়েছে নানা শঙ্কা, জনমনে রয়েছে নানা প্রশ্ন। তবু সব শঙ্কার মধ্যেই আল্লাহতালার সন্তুষ্টির আশায় পশু কোরবানি থেমে থাকবে না। ঈদের নামাজ শেষে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে পশু কোরবানি করবেন সামর্থ্যবান মুসলমানরা।

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এবারের ঈদ আনন্দের সবকিছুতেই যেন ভাটা পড়েছে। তাই স্বজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে শেষ মুহূর্তে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছেন মানুষ। শত প্রতিকূলতা এড়িয়ে নাড়ির টানে বাড়ির পথে ছুটছেন রাজধানীবাসী।

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া, মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ও সদরঘাটে ঘরমুখো মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। এ ছাড়া সায়েদাবাদ, গাবতলী ও মহাখালী বাস টার্মিনালে ভিড় ছিল চোখে পড়ারা মতো। আর ট্রেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে যাত্রী নেয়ার কথা থাকলেও মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে যাত্রীদের গাদাগাদি করে ট্রেনে উঠতে দেখা গেছে।

সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী ঈদুল আজহার জামাত মসজিদে নাকি ঈদগাহে কিংবা খোলা জায়গায় আয়োজন করা হবে তা জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা ও সমন্বয় করে স্থানীয় প্রশাসন নির্ধারণ করার কথা। জানা গেছে, স্থানীয় প্রশাসন করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় জননিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে ঈদগাহে বা খোলা জায়গায় ঈদ জামাতের অনুমতি দেয়নি। প্রয়োজনে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে মসজিদে একাধিক ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এ বছর গত ১৪ মে ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাতও হয়েছিল মসজিদেই। ঈদুল আজহায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৭টায়, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টায়, তৃতীয় জামাত সকাল ৯টায়, চতুর্থ জামাত সকাল ১০টায়, পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত বেলা পৌনে ১১টায় হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা বলা হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category