,

মানবিক সংগঠন ইউনিক ইয়ুথ অর্গানাইজেশন

মাহাফুজ আনামঃ ইউনিক ইয়ুথ অর্গানাইজেশন এটি কুষ্টিয়া মিরপুর, ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের কামিরহাট গ্রামে অবস্থিত। মিরপুরে আলো সেচ্ছাসেবী পল্লীউন্নয়ন সংস্থার তত্ত্বাবধায়নে ১১ টি যুব সংগঠন রয়েছে। তারই মধ্যে একটি ইউনিক ইয়ুথ অর্গানাইজেশন। (৯ জুন) বুধবার বিকেলে, স্বাস্থ্যবীধি মেনে সংগঠনটির সদস্যদের মাঝে বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৮ সাল থেকে যাত্রা শুরু করে, সংস্থাটি ২৫ জন যুব সদস্য নিয়ে বিভিন্ন সময়ে সামাজিক উন্নয়নমূলক কার্যক্রম সম্পাদন করা ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে দাড়িয়েছে। উক্ত সংগঠনটি ২০২০ সালে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কতৃক ইউনিক ইয়ুথ অর্গানাইজেশন নামে রেজিস্ট্রেশন লাভ করে। ২৫ সদস্যদের সংগঠনটি ৭জন সদস্য বিশিষ্ট একটি কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ ৭ টি পদের মধ্যে রয়েছে, সভাপতি, সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সহসাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ, প্রচার সম্পাদক ও নির্বাহী সদস্য। সুদক্ষ ভাবে সংগঠন পরিচালনায় নিয়োজিত সদস্যবৃন্দ সংগঠনিক ও উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কর্মকান্ড ও সিদ্ধান্ত গ্রহনে সকল সদস্যের মতামতকে প্রাধান্য দিয়ে সকল কাজ সম্পূর্ণ করে আসছে। সংগঠনটির একটি নিজস্ব ব্যাংক একাউন্ট রয়েছে। সংগঠনের সদস্যরা আলো, একশন এইড বাংলাদেশ, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপি প্রমুখ কতৃক আয়োজিত বিভিন্ন প্রশিক্ষন গ্রহনের মাধ্যমে নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধি ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর প্রবল উৎসাহ পেয়েছে। এর ফলাফল স্বরুপ যুব সংগঠন টি ২০১৮ সালের পর থেকে এবং কোভিড- ১৯ মহামারীর সময় থেকে এখন প্রর্যন্ত বিভিন্ন কাজ ( অনলাইন ও অফলাইনে কোভিড -১৯ সচেতনতা ও করণীয় ক্যাম্পেইন করা পোস্টার, লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ, জীবাণুনাশক স্প্রে করা। এছাড়াও আলো ও একশন এইড বাংলাদেশের সহযোগিতায় জনাকীর্ণ স্থানে ওয়াশিং পয়েন্ট স্থাপন, এক হাজার লিটার পানি ধারণ ক্ষমতা সম্পূর্ণ পানির ট্রাংকি স্থাপন করেছেন মসজিদ ও ক্লিনিকে। এছাড়া করোনাকালীন সময়ে হতদরিদ্র অসহায় দুস্ত মানুষের মাঝে ৪ দফায় প্রতিবার ৩০ দিনের জন্য খাবার ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছেন। করোনা কালীন স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা ও রোগ প্রতিরোধ করার কথা ভেবে কিছু নিয়মকানুন ও খাদ্যতালিকা এবং করোনাকালীন সময়ের সঠিক পদক্ষেপ বিষয়ক বিভিন্ন পয়েন্ট সচেতনতামূলক ব্যানার টাঙিয়েছেন। উক্ত সংগঠনটির মূল লক্ষ্য অংশগ্রহনমূলক গনতন্ত্র ও যুব প্রতিনিধিত্বকে সামনে রেখে অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানো, এবং অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো। এছাড়া স্থানীয় সরকারের সাথে বিভিন্ন ধরনের এডভোকেসি, ক্যাম্পেইন করে থাকে। সংগঠনটি তাদের কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে প্রতি মাসে মান্থলি রিফ্লেকশন একশন মিটিং এর আয়োজন করে ও সময়োপযোগী বিভিন্ন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করে চলেছে। উক্ত সংগঠন টির উপদেষ্টা ও সহযোগী সংস্থা আলো সেচ্ছাসেবী পল্লীউন্নয়ন সংস্থার পরিচালক ফিরোজ আহম্মেদ বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি তারা সবাই সেচ্ছাসেবী কাজের সাথে সংযুক্ত হতে পেরে আনন্দিত ও উৎসাহিত। তারা এমন প্লাটফর্ম থেকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ পেয়েছে। তাদেরকে দেখে অনেকে সেচ্ছাসেবী কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category