,

তারুণ্য শক্তির বহিঃপ্রকাশ উদয়ন যুব সংস্থা

তানিয়া সুলতানা নিলাঃ আলো স্বেচ্ছাসেবী পল্লী উন্নয়ন সংস্থা। এটি কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় অবস্থিত। এ সংস্থার তত্ত্বাবধানে ১১টি যুব সংগঠন রয়েছে। তারই মধ্যে একটি মিরপুর সেন্ট্রাল টিম উদয়ন যুব সংস্থা।

২০১৮ সাল থেকে সংস্থাটি ২৫ জন সদস্য নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক কার্যক্রম সম্পাদন করা ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে দাড়িয়েছে। উক্ত সংগঠনটি ২০২০সালে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কর্তৃক উদয়ন যুব সংস্থা নামে রেজিষ্ট্রেশন লাভ করে। ২৫ সদস্যের সংগঠনটিতে ৭জন সদস্য বিশিষ্ট ১টি কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়েছে। যেখানে ৭ জন তরুণ-তরুণী দায়িত্ব পালন করছে। এ ৭টি পদের মধ্যে রয়েছে সভাপতি, সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সহ-সাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ, প্রচার সম্পাদক ও নির্বাহী সদস্য। এরা নিজেরা নিজেদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে আসছে। সংগঠনিক ও উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কর্মকান্ড ও সিদ্ধান্ত গ্রহণে সকল সদস্যের মতামতকে প্রাধান্য দেওয়া হয়। সংগঠনটির একটি নিজস্ব ব্যাংক একাউন্ট রয়েছে। সংগঠনের সদস্যরা আলো, একশন এইড বাংলাদেশ, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপি প্রমুখ কর্তৃক আয়োজিত বিভিন্ন প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধি ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে দাড়ানোর প্রবল উৎসাহ পেয়েছে। এর ফলস্বরূপ যুব সংগঠনটি ২০২০সালের কোভিড-১৯ মহামারির সময় থেকে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন কাজ (অনলাইন ও অফলাইনে কোভিড-১৯ সচেতনতা ও করণীয় ক্যাম্পেইন করা, পোস্টার, লিফলেট বিতরণ, মাস্ক বিতরণ, জীবাণুনাশক স্প্রে করা, অনলাইন ও অফলাইনে এক্টিভিস্তা কুষ্টিয়ার ভলেন্টিয়ার ও অন্যদের সহযোগিতার অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করেছে।

এছাড়াও আলো ও একশন এইড বাংলাদেশের সহযোগিতার জনাকীর্ণ স্থানে ওয়াশিং পয়েন্ট স্থাপন, এক হাজার লিটার পানি ধারণ ক্ষমতা সম্পর্ণ পানির ট্রাংকি বিতরণ, হতদরিদ্র ও দুস্থ মানুষের মাঝে ৪দফায় খাবার ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ ও কোভিড-১৯ আক্রান্তরা যেন ভেঙে না পড়ে এইজন্য বিভিন্নভাবে সাহস ও মনোবল যুগিয়েছে আসছে।

উক্ত সংগঠনটির মূল লক্ষ্য অংশগ্রহণমূলক গণতন্ত্র ও যুব প্রতিনিধিত্বকে সামনে রেখে স্থানীয় সরকারের সাথে বিভিন্ন ধরনের এডভোকেসি,ক্যাম্পেইন করে থাকে। সংগঠনটি সচল রাখতে প্রতি মাসে মান্থলি রিফ্লেকশন একশন মিটিং এর আয়োজন করে ও সময় উপযোগী বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে চলছে।

আলো স্বেচ্ছাসেবী পল্লী উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক ফিরোজ আহম্মেদ বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি তারা সবাই স্বেচ্ছাসেবী কাজের সাথে সংযুক্ত হতে পেরে আনন্দিত এবং অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোঁটানোর মধ্যে আত্নিক শান্তি নিহিত। তাদেরকে দেখে অনেকে স্বেচ্ছাসেবী কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category