,

পোড়াদহে এখনও অবাধে বিক্রি হচ্ছে মাদক

ষ্টাফ রিপোর্টার: কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহে এখনও সক্রিয় রয়েছে অনেক মাদক ব্যবসায়ী । নির্বিঘ্নে অবাধে বিক্রি করে চলেছে বিভিন্ন প্রকার মাদক দ্রব্য। মনে হচ্ছে এদের বিরুদ্ধে বলার যেমন কেউ নেই, দেখার জন্যেও যেন কেউ নেই।

সম্প্র্রতি পত্রিকায় মাদকের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ হলে, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন নড়ে চড়ে বসে। পুলিশ লোক দেখানো অভিযান চালিয়ে কিছু মাদকসেবীদের আটক করলেও মূল মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করছে না। এলাকার জনপ্রতিনিধিরা এসব মাদক ব্যবসায়ীদের আটকের ব্যাপারে সহযোগিতা করলেও পুলিশ তাদের ধরছে না। বিধায় পোড়াদহে পূর্বে মাদক ব্যবসার যে চেহারা ছিল , সে চেহারাই রয়ে গেছে। যার কারণে এলাকার যুব সমাজ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়াচ্ছে, ধাবিত হচ্ছে অনাকাঙ্খিত মৃত্যুর দিকে। এমনটি অভিযোগ এলাকাবাসী, অভিভাবক ও সচেতন মহলের।

আর পুলিশ বলছে ভিন্ন কথা। তারা বলছে, আমরা মাদক ব্যবসায়ী এবং সেবীদের আটক করে মামলা দিয়ে জেলে পাঠাচ্ছি, পরে তারা জামিনে বেরিয়ে এসে পূনরায় এই অবৈধ ব্যবসা চালাচ্ছে।

এলাকাবাসী ও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জনপ্রতিনিধি জানান, পোড়াদহ ইউনিয়নের গ্রাম পোড়াদহ কুঠিপাড়া গ্রামের মৃত জালাল আলীর ছেলে সেলিম আলী পোড়াদহ-হালসা রেল লাইনের আউট সিগলানের সাথে রেলের উপর রাত দিন বিক্রি করছে হেরোইন ও ইয়াবা। একই গ্রামের মহিবুল ইসলামের ছেলে মামুন ইসলাম হেরোইন বিক্রি করছে বাড়িতে এবং এলোপাতাড়ীভাবে বিভিন্ন জায়গায় বেড়িয়ে। গ্রাম পোড়াদহ গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ফেন্সিডিল বিক্রি করছে স্বরুপদহ চকপাড়া গ্রামের বাচ্চু আলীর ছেলে সবুজ আলী। গ্রাম পোড়াদহ কুঠিপাড়া গ্রামের মৃত রুস্তম আলীর ছেলে মামুন আলী তার নিজ বাড়িতে এবং আশেপাশে চলাফেরা করে বিক্রি করছে মরন নেশা হেরোইন।

এছাড়া স্বরুপদহ চকপাড়া গ্রামের আমিরুল ইসলামের হেরোইন ব্যবসা চলছে জোরেসোরেই। পোড়াদহ রেলওয়ে হাসপাতাল মার্কেটের পার্শ্বে সুইপার পট্টি বাংলা মদ বিক্রি করছে মতিলালের ছেলে বাদল, মনিলালের ছেলে রাজু ও সাজু, সোনালালের ছেলে বাবুলাল ও হিরোলাল।

এছাড়াও দক্ষিণ কাটদহ গ্রামে অবস্থিত সুইপারদের মধ্যে মতিলালের দুই ছেলে সুনিল ও সুজন মদ বিক্রি করছে। সরকারীভাবে এদের নির্দিষ্ট পরিমানে মদ সেবন করার কথা থাকলেও তারা অতিরিক্ত মদ বাইরে থেকে এনে দেদারছে বিক্রি করছে। এসব মাদক ব্যবসায়ী মোবাইল ফোনের আশির্বাদে মাদক সেবীদের সাথে যোগাযোগ করে নির্ধারিত স্থানে পৌছে দিচ্ছে মাদক। আর এই মাদকের টাকা যোগাড় করতে মাদক সেবীরা রেপরোয়া হয়ে উঠছে। ফলে এলাকায় ঘটাচ্ছে চুরিসহ অনাকাঙ্খিত কিছু ঘটনা। পরিবেশ হচ্ছে নষ্ট । অভিভাবক মহল তাদের সন্তানদের নিয়ে রয়েছে চিন্তিত। এসব মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করে এলাকার যুব সমাজকে ধ্বংসের দ্বার প্রান্ত থেকে রক্ষা করে মাদকমুক্ত পোড়াদহ করার জন্য পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষন করেছে এলাকার সচেতন মহল।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category