,

সিরিয়ায় গাড়িবহরে হামলায় নিহত বেড়ে ১১২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সিরিয়ার অবরুদ্ধ শহর থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের সরিয়ে নেয়ার অপেক্ষায় থাকা বাসের বহরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১২ জনে পৌঁছেছে। এরমধ্যে নারী ও শিশুও রয়েছে। শনিবার পশ্চিম আলেপ্পোর রাশিদিনে সরিয়ে নেওয়া বাসিন্দাদের অপেক্ষায় থাকা বাসবহরে এ হামলার ঘটনা ঘটে।
রোববার যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার পর্যবেক্ষণ সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, বিস্ফোরণে অন্তত ১১২ জন বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এর আগে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩ জনে পৌঁছেছে বলে জানিয়েছিল গ্রুপটি।

ঘটনার প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, অনেক মানুষের লাশ বাসে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে আছে। এ হামলার ফলে বাসগুলি তছনছ হয়ে যায় এবং গাড়িগুলোতে আগুন ধরে যায়। আলেপ্পোর কাছে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় গাড়িবহরটি অপেক্ষা করছিল।
সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনাকীরা গ্রুপ ‘সিরিয়ান সিভিল ডিফেন্স’ শনিবার জানিয়েছে, এ ঘটনায় অন্তত ১০০ জন নিহত হয়েছে। অন্যদিকে, সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে নিহতের সংখ্যা ৩৯ বলে জানানো হয়েছিল।
সিরীয় সরকার ও বিদ্রোহীদের মধ্যে অবরুদ্ধ চারটি শহর থেকে বেসামরিক নাগরিকদের সরিয়ে নেওয়ার চুক্তি স্থগিত হয়ে গেলে আলেপ্পোর শহরতলিতে বাসে আটকা পড়েছেন কয়েকহাজার মানুষ। চুক্তি অনুসারে কয়েক হাজার মানুষকে বাসে করে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হচ্ছিল। তবে শুক্রবার শেষ রাতের দিকে চুক্তি স্থগিত হয়ে গেলে মাঝপথে আটকা পড়েন এসব মানুষ।
আল জাজিরার খবরে বলা হয়, সরিয়ে নেয়ার জন্য আল-ফৌয়া ও কেফরায়া শহরের মানুষ রাশিদিন এলাকায় অপেক্ষা করছিলেন। মাদায়া শহরের বিদ্রোহী ও বাসিন্দারা সরকার নিয়ন্ত্রিত রামৌসাহ এলাকায় বাসে অপেক্ষা করছেন। তাদের ইদলিব থেকে নিয়ে আসা হচ্ছিল। এসময় ওই গাড়িবহরকে লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category