,

হত্যা মামলায় ৫ ভাইয়ের যাবজ্জীবন

খুলনা প্রতিনিধি: যশোরের কেশবপুরে বোরহান উদ্দিন গাজী (১৮) ওরফে মারুফ নামে এক কলেজছাত্র হত্যা মামলায় পাঁচ ভাইকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এমএ রব হাওলাদার এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কেশবপুর উপজেলার কিসমত শানতলা গ্রামের মৃত জয়নাল ধাবকের ছেলে মো. মহির উদ্দিন ধাবক (৪৫), মো. জহির উদ্দিন ধাবক (৪১), মো. কহির উদ্দিন ধাবক (৩৫), মো. কবির উদ্দিন ধাবক (৩৩) ও মো. দবির উদ্দিন ধাবক (৩০)।

রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত চার ভাই মহির, জহির, কহির ও দবির আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তাদের অপর ভাই কবির পলাতক রয়েছেন।

মামলার এজাহারের উদ্ধৃতি দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি এনামুল হক জানান, জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কিসমত শানতলা গ্রামের মৃত জব্বার গাজীর ছেলে মো. শওকত গাজীর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী মৃত জয়নাল ধাবকের ৫ ছেলের বিরোধ ছিল। ওই বিরোধের জের ধরে ২০১৩ সালের ১১ ডিসেম্বর সকালে কিসমত শানতলা গ্রামের গাজীর মোড়স্থ দবির উদ্দিন ধাবকের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় শওকত গাজীর ছেলে রায়হান উদ্দিন গাজীকে (২৪)।

সেখানে তাকে ক্রিকেট খেলার ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। সংবাদ পেয়ে সিদ্দিকুর রহমান গাজীর ছেলে বোরহান উদ্দিন গাজী (১৮) ওরফে মারুফ রায়হান গাজীকে উদ্ধার করতে যায়। তখন আসামিরা তাকেও পিটিয়ে জখম করে। স্বজনরা বোরহানকে উদ্ধার করে খুলনা মেডি্ক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। মারুফের অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরের দিন ঢাকায় নেয়ার পথে দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নিহত মারুফের চাচা মৃত আব্দুল হামিদ গাজীর ছেলে মো. রজব আলি গাজী বাদী হয়ে ৭ জনের বিরুদ্ধে কেশবপুর থানায় মামলা করেন।

২০১৪ সালের ১ এপ্রিল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক নাসির উদ্দিন ৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

মামলাটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর যশোরের অতিরিক্ত জেলা জজ দ্বিতীয় আদালত থেকে খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category