,

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ধর্ষণ!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃফরিদপুরে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের এক কিশোরীকে (১৫) বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার রাতে সদরপুর উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে সদরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা করেছেন ওই কিশোরীর বাবা।

কিশোরী ও তার পরিবার জানিয়েছে, বাবু কাজী (২৩) নামের এক বখাটে তরুণ কিশোরীকে ধর্ষণ করেছেন। ওই কিশোরী স্থানীয় একটি স্কুলে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে সে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাড়ির বাইরে এলে বাবু কাজী তাঁর দুই সহযোগী মো. ফারুখ মুন্সী (১৮) ও সাখাওয়াত কাজীর (২২) সহায়তায় ওই কিশোরীর মুখ চেপে তাকে একটি বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেন।

মেয়ের বাবা, মা ও স্থানীয় লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজির পর দিবাগত রাত চারটার দিকে কিশোরীকে বাড়ির সামনের রাস্তা থেকে উদ্ধার করে।

ওই কিশোরী জানায়, বাবু কাজী স্কুলে যাওয়া-আসার পথে তাকে উত্ত্যক্ত করতেন। বাবু কাজী তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেন। কিন্তু কিশোরী ওই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। তবে ওই তরুণের ভয়ে কিশোরী একপর্যায়ে তার সঙ্গে কিছুদিন কথা বলে। কিন্তু কিশোরী কথা বলা বন্ধ করে দিলে বাবু তাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সদরপুর থানার ওসি হারুন অর রশিদ। তিনি জানান, কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে বাবু কাজীকে প্রধান আসামি করে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন। মামলার তিন আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালানো হয়েছে। আসামিরা পলাতক রয়েছেন।

ওসি বলেন, আদালতে ১৬৪ ধারায় কিশোরীর জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। কিশোরীর মেডিকেল পরীক্ষা করে তা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category