,

মাটি দিয়ে মহাসড়ক সংস্কার!

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ মাটি দিয়ে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর মহাসড়কের ভাঙ্গা, গর্ত ভরাট করেছে স্থানীয়রা। রাস্তার বেহাল দশার কারনে এবং সংস্কারের অভাবে দিনদিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এই মহাসড়কটি। প্রতিনিয়তই ঘটছে দূর্ঘটনা। রাস্তায় ভেঙ্গে পড়ছে যানবাহন, খুলে যাচ্ছে চাঁকা, বাস পড়ছে খাঁদে আর সড়ক দূর্ঘটনা এটা যেন এই জরাজীর্ণ মহাসড়কের নিত্য দিনের রুটিন। তার সাথে আছে বিকট শব্দ। রাতে যান বাহন গেলে কেঁপে ওঠে আশেপাশের এলাকা। আর বৃষ্টি হলে তো কথায় নেই বৃষ্টির পানি জমে যায় রাস্তায়। সাধারন মানুষের দূর্ভোগ কিছুটা কমার জন্য এলাকার সাধারন মানুষ মাটি দিয়েই ভরাট করেছে রাস্তার খন্দ।


মঙ্গলবার সকালে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর মহাসড়কের কচুবাড়ীয়া নামক স্থানে এমনটায় চিত্র চোখে মিলল।
স্থানীয় আব্দুর রাজ্জাক জানান, রাস্তার যে বেহাল দশা সেটা কেউ দেখে না। রাস্তার ধুলা-বালি আর গাড়ী চললে বিকট শব্দ হয়। যার কারনে স্থানীয়রা একত্র হয়ে মাটি দিয়ে ভরাট করেছে।


তিনি আরো জানান, যারা রাস্তা ঠিক করতে আসে তারা যে ভাবে ঠিক করে তা তখনই উঠে যায়। তারা চলে গেলেই রাস্তার পাথর উঠে যায়।
স্থানীয় রবিউল ইসলাম জানান, রাস্তাটি একেবারে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। রাতে কোন গাড়ী গেলেই বিকট শব্দে ঘুম ভেঙ্গে যায়। তাছাড়া প্রতিনিয়ত এখানে দূর্ঘটনা ঘটতেই আছে। সড়ক বিভাগের চোখে এগুলো পড়ে না। তারা প্রায় প্রায়ই রাস্তা মেরামত করতে আসে তবে ৩ দিনের বেশি টেকে না। তাদের মেরামতের চেয়ে মাটি দিয়ে ভরাট করাই ভালো। তাতে কিছুটা নিরাপদ হবে। এজন্য এলাকাবাসী মাটি দিয়ে রাস্তার গর্থ ভরাট করেছে।


সরোজমিনে ঘুরে দেখা গেছে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর মহাসড়কে মিরপুর তালতলা থেকে মহদীপুর পর্যন্ত রাস্তার প্রায় প্রতি ইঞ্চিতেই পুটিং করা রয়েছে। গর্ত আর ছোট ছোট ভাঙ্গায় যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে কুষ্টিয়া-মেহেরপুরের গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কটি।


কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, রাস্তাটি নিচের অংশটা খুবই দূর্বল হয়ে গেছে যার কারনে রাস্তাটি মেরামত করা হলেও বেশিদিন স্থায়ী হয় না। তবে খুব শিঘ্রই উক্ত রাস্তাটি সংস্কার করা হবে। আশা করছি আগামী সপ্তাহ থেকে এর কাজ শুরু হবে বলেও জানান তিনি।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category