,

নিরাপত্তা মানেই ব্রিটেনের নিরাপত্তা!

আন্তজার্তিক ডেক্স: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে দাবি করেছেন, পারস্য উপসাগরের নিরাপত্তা রক্ষিত হলে তার দেশের নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে। মঙ্গলবার বার্মিংহামে কাতার ও ব্রিটেনের যৌথ পুঁজি বিনিয়োগকারীদের এক সম্মেলনে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লন্ডন ও দোহার মধ্যে সামরিক ও নিরাপত্তা সহযোগিতা শক্তিশালী করারও আহ্বান জানান।

থেরেসা মে দাবি করেন, গত ডিসেম্বরে পারস্য উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদে ভাষণ দিতে পেরে তিনি গর্বিত হয়েছিলেন। তিনি বলেন, পারস্য উপসাগরীয় মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে ব্রিটেনের সম্পর্ক শুধু ঐতিহাসিক নয় বরং শক্তিশালী ভিত্তির ওপর প্রতিষ্ঠিত।

গত কয়েক মাসে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসনসহ আরো কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় ব্রিটিশ কর্মকর্তা পারস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলো সফর করেন।

বরিস জনসন ৯ ডিসেম্বর মানামা সফরে গিয়ে বাহরাইনের সঙ্গে অর্থনৈতিক ও সামরিক খাতে সহযোগিতা শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কয়েকটি চুক্তি সই করেন।

এর আগে পারস্য উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদের ৩৭তম শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণ ও আরব রাজা-বাদশাহদের সঙ্গে সাক্ষাতের লক্ষ্যে ৬ ডিসেম্বর মানামা সফর করেন থেরেসা মে।  ওই সফরে তিনি এসব দেশের সঙ্গে ব্রিটেনের সামরিক সহযোগিতা জোরদারের উপায় নিয়ে আলোচনা করেন।

পারস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলো এমন সময় ব্রিটেনের সঙ্গে সামরিক সহযোগিতা শক্তিশালী করছে যখন বাহরাইন, ইয়েমেন, সিরিয়া ও ইরাকসহ বিভিন্ন দেশের সাধারণ নিরীহ জনগণ ব্রিটিশ অস্ত্রের আঘাতে বেঘোরে প্রাণ হারাচ্ছে। ইরাক ও সিরিয়ায় সংকট তৈরি হয়েছে ব্রিটিশ পৃষ্ঠপোষকতায় বেড়ে ওঠা সন্ত্রাসীদের কারণে। এই ব্রিটেনের সামরিক সহযোগিতা নিয়েই সৌদি আরব ইয়েমেনের নিরস্ত্র জনগণের ওপর গত দুই বছর ধরে আগ্রাসন চালাচ্ছে। এ ছাড়া, বাহরাইনের মুক্তিকামী জনগণের ওপর আলে খলিফা সরকারের কঠোর দমন অভিযানে পূর্ণ সহযোগিতা দিচ্ছে লন্ডন।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category