,

দৌলতপুরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষষের চেষ্টা, আটক ১

দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে এক স্কুল ছাত্রীকে নগ্ন করে ধর্ষষের চেষ্টা করেছে স্বপন (৩০) নামে এক লম্পট। পুলিশ ধর্ষনের চেষ্টাকারী লম্পট স্বপনকে আটক করেছে।
মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) দুপুর ১২টার দিকে স্কুলের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মুখে ধর্ষনের চেষ্টাকারীকে আটক করে পুলিশ।
পুলিশ ও বিদ্যালয় কতৃপক্ষ জানায়, উপজেলার জেএমজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী ও গুড়ারপাড়া গ্রামের শাহাবুল ডাক্তারের মেয়ে শুক্রবার বিকেলে পাওনা টাকা চাইতে প্রতিবেশী স্বপনের বাড়ি যায়। বাড়িতে স্বপন ছাড়া আর কেউ না থাকায় স্বপন টাকা দেওয়ার কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ঘরের ভিতর ডেকে নিয়ে ঘরের দরজা আটকিয়ে দেয়। এসময় স্কুল ছাত্রী চিৎকার দিতে গেলে তার মুখ হাত বেঁেধ নগ্ন করে মোবাইল ফোনে নগ্ন দেহের ছবি তোলে ইন্টারনেটে তা ছড়িয়ে দেওয়া কথা বলে ওই ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টা করে। একপর্যায়ে স্কুল ছাত্রীর বাঁধা হাত খুলে গেলে সে বাঁধা মুখ খুলে চিৎকার ও কান্নাকাটি শুরু করলে লম্পট স্বপন তাকে ছেড়ে দেয়।
তবে এ ঘটনা কাউকে না বলার জন্য ওই স্কুলছাত্রীকে অস্ত্র দেখিয়ে হত্যার হুমকি দেয় লম্পট স্বপন। শ্লীলতাহানির বিষয়টি কাউকে না বলে সোমবার রাতে সে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে বাড়ির লোকজন তখন বিষয়টি জানতে পেরে বিদ্যালয় কতৃপক্ষকে জানায়।
এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আজ মঙ্গলবার সকালে স্কুলের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করে এবং লম্পট স্বপনকে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি জানায়।
খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্বপনকে আটক করে এবং বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীদের শান্ত করে।
স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানির বিষয়ে জেএমজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম নান্নু জানান, তার স্কুলের নবম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে গুড়ারপাড়া গ্রামের সফির ছেলে স্বপন শ্লীলতাহানির চেষ্টার ঘটনায় স্কুলের সকল শিক্ষার্থী বিক্ষোভ করলে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নেয়।
দৌলতপুর থানার ওসি আহমেদ কবীর হোসেন জানান, স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানির সাথে জড়িত স্বপনকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category