,

কমলাপুরে বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডাররা বেপরোয়া

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার গোলযোগপূর্ণ গোপালপুর-কমলাপুর-পাহাড়পুরে একটি সংঘ্যবদ্ধ গ্র“প নিজেদের লোকজনের ঘরে আগুন ধরিয়ে প্রতিপক্ষের লোকজনের নামে মিথ্যা মামলা দায়েরসহ নানা ধরনের হয়রানি করে চলছে। এঘটনায় কমলাপুর গ্রামের বসারত আলীর ছেলে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আনিছুর রহমান মুকুল বাদী হয়ে কুষ্টিয়ার জেলাপ্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ উদ্ধোতন কর্মকর্তাদের নিকট লিখিত অভিযোগ প্রেরণ করেছে। অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, তিনি ঢাকায় ব্যবসায়ীক ও রাজনৈতিক কারনে অবস্থান করায় তার ও দলীয় লোকজনের নামে প্রতিপক্ষের বিএনপির ওয়ার্ড সভাপতি সিদ্দিক, আছির, জামায়াত নেতা জদসহ একটি সংঘ্যবন্ধ চক্র গত ৯ মার্চ কমলাপুরে বিল্লালের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এবং পূর্বপরিকল্পিত ভাবে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনায় একটি শিশু মর্মান্তিক ভাবে পুড়ে যায়, আহত হয় তার নানি। স্বর্বশান্ত হয় বিল্লাল। কিন্তু প্রতিবেশীরা আনিছুরকে জানান, ঐ ঘরে বিল্লালের পরিবারের একটি গ্র“প গোপনে বিএনপি জামায়াতের নেতাদের সহযোগিতায় আগুন ধরিয়ে দেয়। আর এই অন্যায়ের দোষভার চলে আসে আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাদের নামে। এদিকে গত ৫ মার্চ গোপালপুরের শাহাজাহানের বসত বৈদ্যতিক শটসার্কিটে আগুন ধরে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম ঘটনাস্থলে যেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ করে। কিন্তু ঘটনার বেশকয়েকদিন অতিবাহিত হাওয়ার পর পুলিশ সঠিক তদন্ত না করে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন বলে আনিছুর রহমান জানান। এ ব্যাপারে ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানাগেছে, শাহাজাহানের বাড়িতে বৈদ্যতিক শটসার্কিটের আগুন ধরতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে তদন্ত করে তারা যানতে পেরেছে। মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শাহাবুদ্দিন চৌধরী জানান, মামলাটি তদন্তধীন, আর কমলাপুরের ঘটনায় তদন্ত চলছে। তবে এলাকাবাসীর দাবী আগুনের ঘটনা গুলো সঠিকভাবে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হোক এলাকাবাসীর এমনটাই দাবী নবাগত সুযোগ্য জেলাপ্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category