,

ভারতীয় হত্যা: নির্লিপ্ত ট্রাম্প, ক্ষুব্ধ হিলারি

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রের কানসাসে বর্ণবিদ্বেষের কারণে খুন হওয়া ভারতীয় ইঞ্জিনিয়ার শ্রীনিবাস হত্যাকাণ্ডের দীর্ঘ ৫দিন পরে এ ব্যাপারে মুখ খুলল হোয়াইট হাউজ। ট্রাম্প প্রশাসন জানায়, কানসাসে বর্ণবিদ্বেষের শিকার হয়ে ভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারের মৃত্যু সরকারের জন্য যথেষ্ট অস্বস্তিকর।

কিন্তু এ বিষয়ে এখনো মুখে কুলুপ এটে বসে আছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার প্রতিনিধি এক নিয়মিত প্রেস বিবৃতিতে কানসাসের বাসিন্দা শ্রীনিবাস কুচিভোটলার মৃত্যুর প্রসঙ্গে অফিসিয়াল বক্তব্য দেন।

পুরো বিষয়টি নিয়ে ট্রাম্পের এই নীরবতাই এখন হাতিয়ার বিরোধী ডেমোক্র্যাটদের। ডেমোক্র্যাট নেত্রী হিলারি ক্লিন্টন টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। আর এক ডেমোক্র্যাট নেতা বার্নি স্যান্ডার্সও ট্রাম্পের এই নির্লিপ্ততার বিরুদ্ধে হয়েছেন সরব।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মার্কিন প্রশাসনের এমন উদাসীন ভূমিকায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বুধবার আমেরিকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব এস জয়শঙ্কর। এইচ ওয়ান-বি ভিসা নীতির পাশাপাশি ভারতীয়দের প্রতি বাড়তে থাকা বর্ণবিদ্বেষের বিষয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের সাথে কথা বলবেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব শন স্পাইসার বলেন, ‘‘দেশের প্রতিটি নাগরিকের নিজস্ব ধর্মপালনের অধিকার রয়েছে। আমেরিকায় কেউ যেন তার নিজের ধর্মপালনে ভয় না পান। আমাদের প্রেসিডেন্ট সেটাই আবার সবাইকে মনে করাতে চান। কানসাসে গুলি চালনার ঘটনা নিয়ে যা যা শোনা যাচ্ছে, তার প্রতিটি অংশই আমাদের কাছে সমান অস্বস্তিকর।’’

কিন্তু স্পাইসারের বক্তব্য মনে ধরেনি ডেমোক্র্যাটদের। টুইটারে হিলারি লিখেছেন, ‘যে ভাবে বর্ণ-বিদ্বেষের ঘটনা বাড়ছে, তাতে প্রেসিডেন্টের কী করা উচিত, তা কি আমরা বলে দেব! তার নিজেরই উচিত বিষয়টি নিয়ে বার্তা দেওয়া।’

উল্লেখ্য, শুরু থেকেই ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি নিয়ে তীব্র সমালোচনা চলছে দেশে-বিদেশে। শ্রীনিবাসের মৃত্যুর পরে তা আরও তীব্র আকার ধারণ করেছে।

গত কাল থেকে শ্রীনিবাস হত্যায় অভিযুক্ত প্রাক্তন নৌবাহিনী সদস্য অ্যাডাম পিউরিনটনের বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ ৫০ বছর কারাদণ্ড হতে পারে ৫১ বছর বয়সী অ্যাডামের।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category