,

শহীদ মারফত আলীর স্বপ্ন পূরণ হয়নিঃ আব্দুল আলীম স্বপন

হাবিবুর রহমানঃ “মারফত আলী যে উদ্দ্যেশ্য নিয়ে মহান স্বাধীনতাযুদ্ধ ও রাজনীতি করেছিলো তা এখনো বাস্তবায়িত হয়নি। মারফত আলীর স্বপ্ন সম্পূর্ণ পূরণ হয়নি। মারফত আলী সোনার বাংলা ও সমাজতান্ত্রিক বাংলাদেশ গড়তে চেয়েছিলো। মারফত আলী ছিলেন এদেশের গরীব ও মেহনতি মানুষের আপনজন। তাদের দুঃখে কাঁদতেন তিনি। সর্বদা সাধারন মানুষের কথা বলতেন। তিনি আমাদের গর্ব তথা মারফত আলী সারা বাংলাদেশের গর্ব। মারফত আলীর আদর্শকে বুকে ধারন করে আমাদের পথ চলা উচিত। ”কথাগুলো বলেছেন জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগাঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম স্বপন।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমলা সরকারী ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গনে শহীদ মারফত আলী স্মৃতি সংসদের আয়োজনে কুষ্টিয়ার বিএলএফ এর প্রধান, কৃষক নেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও আমলা সরকারী ডিগ্রি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা এবং মিরপুরের প্রথম উপজেলা চেয়ারম্যান শহীদ মারফত আলীর স্বরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।


এসময় তিনি বলেন, মারফত আলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। তৎকালীন সময়ে উপজেলা চেয়ারম্যানদের এখনকার চেয়ারম্যানদের চেয়ে ক্ষমতা বেশি ছিলো। তিনি আরো বলেন, যারা শান্তিপূর্ণ মিরপুরকে ধ্বংস করতে চাই, তারা এখানে মারফত আলীর স্বপ্নকে বানচাল করতে চাই। আপনারা সাবধান থাকবেন আমরা যেমন মরতে জানি, তেমনি মারতেও পারি।
এসময় জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মহাম্মদ আব্দুল্লাহ’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আমলা সরকারী ডিগ্রি কলেজের প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর মোয়াজ্জেম হোসেন, কেন্দ্রীয় জাসদের সহ-সম্পাদক শরিফুল কবীর স্বপন, কুষ্টিয়া জেলা জাসদের সভাপতি আলহাজ্ব গোলাম মহসীন, চুয়াডাঙ্গা জেলা জাসদের সভাপতি সবেদ আলী, মেহেরপুর জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম রসুল, মিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার আফতাব উদ্দিন খাঁন, মিরপুর উপজেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক আহাম্মদ আলী, উপজেলা জাসদের সাবেক সভাপতি শফিউল আলম, শহীদ মারফত আলীর সহধর্মীনি আঞ্জুমান মারফত, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান বাহাদুর আলী শেখ, কুষ্টিয়া জেলা জাসদের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কারশেদ আলম, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডাঃ রবিউল ইসলাম, কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওমর আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ চাঁদ আলী, ভেড়ামারা উপজেলা জাসদের সভাপতি এমদাদুল ইসলাম আতা, সাবেক সভাপতি নবীরউদ্দিন, সাধারন সম্পাদক এসএম আনছার আলী, কুষ্টিয়া জেলা জাসদের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক বশিরুল ইসলাম, যুগ্ম-সম্পাদক সহির উদ্দিন, আমলা ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি আজাম্মেল হক, কুর্শা ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি জামিরুল ইসলাম, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি সাইদুর রহমান, সদরপুর ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি সাবদার আলী, ধুবাইল ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি জালাল উদ্দিন, ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি আব্দুল শুকুর, চিথলিয়া ইউনিয়ন জাসদের সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবি, কুষ্টিয়া জেলা নারী জোর্টের নেত্রী ডালিয়া পারভীন, আমলা ইউনিয়ন জাসদের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক কাজী নুরুনবী শুকুল, জাসদ নেতা হামিদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন, চাষী নজরুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি সার্বিকভাবে পরিচালনা করেন মিরপুর উপজেলা জাসদের সাংগাঠনিক সম্পাদক আফতাব উদ্দিন।


এর আগে সকালে সাবেক এ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সকালে কুষ্টিয়ার আমলা সরকারী ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গনে শহীদ মারফত আলী’র মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সকালে শহীদ মারফত আলী স্মৃতি সংসদ, উপজেলা জাসদ, আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, বিএনপি নেতৃবন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়ন জাসদ, প্রেসক্লাব, পরিবারের সদস্যরা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকলস্তরের মানুষ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। পরে এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য-মিরপুর উপজেলা পরিষদের প্রথম চেয়ারম্যান, জাসদ নেতা বীরমুক্তিযোদ্ধা মারফত আলী ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাসদের মনোনিত প্রার্থী হিসেবে কুষ্টিয়া-২ আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছিলেন।
১৯৯১ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারী কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের ইশালমারী মাঠের মধ্যে সন্ত্রাসী চরমপন্থী নেতা সিরাজ বাহিনীর প্রধান সিরাজের নেতৃত্বে মারফত আলীকে ব্রাশফায়ার করে হত্যা করা হয়।
সেই থেকে এ এলাকার জনগন প্রতিবছর এ দিনটি যথাযথভাবে পালন করে আসছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category