,

পিরোজপুরে আমন উৎপাদনে নতুন রেকর্ড

পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ জেলায় এবার আমন চালের উৎপাদন অতীতের সকল রেকর্ড অতিক্রম করেছে। চলতি বছরে আমন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা এক লাখ ২১ হাজার ৪৬৩ মেট্রিক টন নির্ধারণ করা হলেও উৎপাদন হয়েছে এক লাখ ২২ হাজার ৪৯৯ মেট্রিক টন যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এক হাজার ৩৬ মেট্রিক টন বেশি।

পিরোজপুরের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে পিরোজপুর সদর উপজেলায় ১০ হাজার ১৫০ হেক্টরে ২০ হাজার ৭৫৫ মেট্র্রিক টন, ইন্দুরকানীতে পাঁচ হাজার ৪২৫ হেক্টরে নয় হাজার ৭৮৩ মেট্র্রিক টন, কাউখালীতে চার হাজার ৬৪৫ হেক্টরে আট হাজার ৭২১ মেট্র্রিক টন, নেছারাবাদে নয় হাজার ২৪৫ হেক্টরে ১৫ হাজার ১৪২ মেট্র্রিক টন, নাজিরপুরে ছয় হাজার ৯৫৮ হেক্টরে ১৪ হাজার ১৭৩ মেট্র্রিক টন, ভান্ডারিয়ায় আট হাজার ১৮৪ হেক্টরে ১৪ হাজার ৫৩ মেট্র্রিক টন এবং মঠবাড়িয়ায় ২০ হাজার ৩৭০ হেক্টরে ৩৯ হাজার ৮৭২ মেট্র্রিক টন চাল উৎপাদিত হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা জানিয়েছে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে হাইব্রিড, উফশী, স্থানীয় রোপা, স্থানীয় বোনা মিলিয়ে ৬৪ হাজার ৯৭৭ হেক্টরে আমনের চাষ করা হয় এবং চাল উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়ায় এক লাখ ২২ হাজার ৪৯৯ মেট্র্রিক টন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. আবুল হোসেন তালুকদার জানান আমন ধানের শীষ বের হওয়ার সময় আমন ফসলের কিছু কিছু ক্ষেতে পোকার আক্রমণ শুরু হলেও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের উপদেশ অনুযায়ী কৃষকরা ব্যবস্থা নেয়ায় উৎপাদনের কোন ক্ষতি হয়নি। কৃষি বিভাগের উপ-সহকারী কর্মকর্তারা মাঠে মাঠে ঘুরে পাতামোড়ানো এবং পামরী পোকার দমনে আলোক ফাঁদ এবং পার্চিং পদ্ধতি ব্যবহারের পরামর্শ দেয়। সে অনুযায়ী চাষিরা ব্যবস্থা গ্রহণ করায় সহজেই পোকা দমন ও বিস্তার রোধ সম্ভব হয়।

এদিকে চাষিরা আমন চাষ মৌসুমে গুটি ইউরিয়া ব্যবহার করায় তাদের প্রায় ১৬ লাখ টাকা মূল্যের ১০৬ মেট্র্রিক টন সার এর সাশ্রয় হয়েছে। দুই হাজার ১১০ হেক্টরে আমন মৌসুমে ২৩২ মেট্র্রিক টন গুটি ইউরিয়া ব্যবহার করা হয়েছে। কৃষি বিভাগের একটি সূত্র জানিয়েছে, পিরোজপুরে ক্রমান্বয়ে গুটি ইউরিয়ার ব্যবহার চাষিদের কাছে জনপ্রিয় হচ্ছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category