,

ঝালকাঠিতে সংখ্যালঘুর জমি জবরদখল ,মন্দিরে হামলা- প্রতিমা ভাংচুরের অভিযোগ

ঝালকাঠি প্রতিনিধি:ঝালকাঠিতে এক সংখ্যালঘুর বিরোধীয় জমি জবরদখল ও মন্দিরে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাংচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় ঝালকাঠি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। খবর পেয়ে ঝালকাঠি থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযোগে জানাগেছে, গতবুধবার সকালে প্রতিপক্ষ মোঃ কাদেরের ছেলে কালু হওলাদার, ধলু হাওলাদার, মজিদের ছেলে শহিদুল, কালুর ছেলে মোনাছেব, ধলুর ছেলে কবির সহ ঝালকাঠি শহরের ভাড়াটিয়া ২০/২৫ জন সন্ত্রাসী স্টাইলে সংখ্যালঘু পরিমলের ভোগদখলীয় জমি জবরদখল করে নেয় এবং সেখানে একটি ছোট ঘর তৈরি করে। এ সময় জমির পাশে থাকা একটি মনসা মন্দিরে হামলা  ও প্রতিমা ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। এতে বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা তাদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়। পরিমল ও এলাকার কয়েকজন লোক জানায়, স্থানীয় কালু ও ধলুর সাথে জমি নিয়ে পরিমলের প্রায় ৩০ বছর পুর্ব থেকে মামলা চলে আসছে। চারটি মামলায় আদালত থেকে পরিমল রায় পেয়েছে বলেও জানায়। বর্তমানে আদালতে একটি মামলা রয়েছে বিচারাধীন, কিন্তু হঠাৎ প্রতিপক্ষরা এভাবে আইন কানুন তোয়াক্কা না করে জবর দখল ও হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাংচুর ও প্রাণনাশের হুমকি-ধুমকিতে জীবনের নিরাপাত্তাহীনতায় রয়েছে বলে পরিমল ও তার পরিবার জানায়। ইউপি সদস্য আবুল হোসেন মল্লিক বলেন, আমরা খবর পেয়েছি যে পরিমলের জমি দখল করে ঘর তৈরি করছে। এমন খবরে চেয়ারম্যান আমাকে ঐ বাড়িতে পাঠিয়েছে। আমি ঊভয় পক্ষকে কোন কাজ না করে শান্তি বজায় রেখে সকল কাগজপত্র নিয়ে চেয়ারম্যানের সাথে দেখা করতে বলেছি। বিষয়টি চেয়ারম্যান দেখবেন। সাবেক ইউপি সদস্য সোহরাব জানান, আমাদের নথুল্লাবাদ ইউনিয়নের এ ওয়ার্ডে মাত্র একটি হিন্দু পরিবার আছে। তাদের উপর এমন হামলা, জমি দখল প্রতিমা ভাংচুর দুঃখ জনক। এর বিচার হওয়া উচিত। কালু হাওলাদার দিনে দুপুরে জমি দখল করে একটি ছোট ঘর বানিয়ে সেখানে রসের পায়েশ খেয়ে আনন্দ উৎসব করতে দেখা গেছে।  এ ব্যাপারে আঃ মজিদ (কালু হাওলাদার) জনায়, ক্রয় সূত্রে এ জমির মালিক আমি। তাই জমিতে থাকার জন্য ঘর তৈরি করেছি। ঝালকাঠির কয়েকজন এসে এখানে রসের শিন্নি খেয়ে গেছে তারা আমাদের আত্মীয়। হামলা ভাংচুরের কোন ঘটনার সাথে আমরা জড়িত নই।এ বিষয়ে ঝালকাঠি থানার এ এস আই মিঠুন বলেন, জমি দখল ও হামলার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ করেছে পরিমল।  আমি ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছি এ ঘটনায় মামলা রুজু করা হবে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category