,

কুষ্টিয়ায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্বামীকে কুপিয়েছে স্ত্রী

রুবেল আহাম্মেদ নান্নু : কুষ্টিয়ায় পারিবারিক কলহের জের ধরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্বামীকে কুপিয়েছে এক স্ত্রী। এমনকি রাতে পেট্রোল দিয়ে বসতবাড়ির ৩টি ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে।
বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলার জিয়ারখী ইউনিয়নের কমলাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর থেকে ঐ স্ত্রী পলাতক রয়েছে।
স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, ঘরে প্রথম স্ত্রী থাকার পর ও প্রায় ৭মাস আগে সদর উপজেলার কাশেম আলীর ছেলে ৩ সন্তানের জনক মমিন মৃধা পাশের গ্রামের গকুল বিশ্বাসের মেয়ে শান্তা খাতুনকে প্রেম করে বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই সতীনের সাথে বনিবনা না হওয়ায় আলাদা হয়ে যাওযার জন্য স্বামীকে চাপ দিতে থাকে শান্তা। এই নিয়ে সংসারে সব সময় অশান্তি বেধে থাকতো। একমাস আগে শান্তা শ্বশুড় বাড়ি থেকে বাবার বাড়ি চলে যায়। এরপর থেকে শান্তা তার স্বামীকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে থাকে। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার সকালে শান্তা তার স্বামীকে পেছন থেকে মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। এতে মমিন মাথায় ও হাতে আঘাত প্রাপ্ত হন।
এ ঘটনার পর মমিন তার দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে শান্তা।  রাতে সবাই ঘুমিয়ে পড়লে রাত ২টার দিকে শান্তা বাড়িতে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় সে চিৎকার করে শ্বশুড় বাড়ির সবাইকে হত্যা করার হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়। আগুনে বসত বাড়ির তিনটি ঘর পুড়ে ভস্মিভূত হয়ে যায়। এ ঘটনার পর থেকে শান্তা খাতুন পলাতক রয়েছেন।
এ ব্যাপারে মমিন মৃধা জানান, শান্তা আমাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে জখম করেছে। সেই সাথে গভীর রাতে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেই। আমি এ ঘটনায় থানায় মামলা করবো।
মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাবুদ্দিন চৌধুরী জানান, শুক্রবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। অভিযোগ দিলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category