,

ধর্ষণ-নির্যাতনের ক্ষত নিয়ে হাসপাতালে গৃহবধূ

ফেনী প্রতিনিধি : ধর্ষণ-নির্যাতনের ক্ষত নিয়ে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন এক গৃহবধূ (২৩)।

ওই গৃহবধূর স্বামী জানান, তারা ছাগলনাইয়া উপজেলার দক্ষিণ মন্দিয়া গ্রামে বসবাস করেন। তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। তার স্ত্রীকে তার চাচাত দেবর ফিরোজ দুই বছর ধরে উত্ত্যক্ত করছিলেন। গত শনিবার সন্ধ্যায় তার স্ত্রী বাড়ির পাশের নলকূপে পানি আনতে গেলে ফিরোজ এবং মুখোশ পরা এক ব্যক্তি তার স্ত্রীকে ধরে নিয়ে ধর্ষণ করে। তিনি চিৎকার করলে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে পালিয়ে যায় তারা। তার স্ত্রীকে রাতে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর নারী ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে এখন তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে ছাগলনাইয়া থানায় মামলা করেছেন। এ ঘটনায় এখনো কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

ফেনী সদর হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. অসীম কুমার সাহা জানান, গৃহবধূকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। তার পায়ে একাধিক স্থানে আঘাত রয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ছাগলনাইয়া থানার তদন্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, ওই গৃহবধূকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category