,

কুষ্টিয়ায় ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

এম এম জামাল: বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৬৯ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে  র‌্যালী ও সমাবেশ করেছে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগ।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বুধবার সকালে জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং দুপুরে বড় বাজার এলাকা থেকে বর্নাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়।

র‌্যালীটি বাদ্যের তালে তালে মজমপুর গেটে অবস্থিত ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সেখানে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইয়াসির আরাফাত তুষারের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সাদ আহমেদের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান, সাধারন সম্পাদক আজগর আলী, কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শেখ হাসান মেহেদী, শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান আতা, জেলা যুবলীগের আহবায়ক রবিউল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবি, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল আহমেদ, সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের নেতা আরশেদ আলী প্রমুুখ। আনন্দ র‌্যালিতে সংগঠনের জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতাকর্মী ছাড়াও জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা অংশ নেন। এর আগে রাত ১২টা এক মিনিটে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়। প্রসঙ্গত, জাতির পিতার হাতে গড়া এ সংগঠনের জন্মদিনকে স্বাগত জানাতে এবারই ব্যতিক্রম কিছু করার প্রয়াস নেতাকর্মীদের। শুধু কি তাই? মজমপুরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালের চারপাশে নিল বাতির আলোয় আলোকিত করা হয়েছিলো। অন্যবারের চেয়ে এবার কিছুটা ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এবারের ব্যতিক্রমী উদ্যোগের নাম দেওয়া হয়েছে ‘চিত্রপটে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’। জন্মদিন উপলক্ষে সম্পূর্ণ নতুন আঙ্গিকে সাজানো হয়েছে কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ এলাকা। রঙিন ছোঁয়া লেগেছে কলেজ এলাকার সড়কসহ কলেজের বিভিন্ন দেয়ালে। ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা বঙ্গবন্ধু, বর্তমান কর্ণধার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিশ্ব নেতাদের বিভিন্ন বাণীসহ জঙ্গিবাদের মূলোৎপাটনের বিভিন্ন উক্তি দিয়ে সাজানো হয়েছে দেওয়াল লিখনের কারুকাজ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ হাসিনা, সজীব ওয়াজেদ জয় এবং ছাত্রলীগের অফিসিয়াল লোগো ছাড়াও বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ও ফুটে উঠেছে এই দেয়াল চিত্রে। চিত্রে বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে প্রতিষ্ঠিত এই সংগঠনের কথাও উঠে এসেছে। সেই সাথে জাতীয় পতাকাসহ সংগঠনের পতাকাও শোভা পাচ্ছে রংতুুলির আচড়ে। ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হলের সভাকক্ষে এক সাধারণ আলোচনার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ)। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ইতিহাস গৌরব, ঐতিহ্য, সংগ্রাম ও সাফল্যমন্ডিত। ১৯৪৮ সাল থেকে শুরু করে বর্তমান পর্যন্ত দেশ ও জনগণের স্বার্থ রক্ষর্থে প্রত্যেকটি আন্দোলন-সংগ্রামে প্রত্যক্ষভাবে ভূমিকা রেখেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। রাজিব ও ডিনার নামের দুই তরুন জানান, কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ চত্বরের বিভিন্ন দেওয়াল দেখে ভালই লাগছে। বিভিন্ন জাতির জনক ও প্রধানমন্ত্রী স্লোগানসহ রংতুলির আচড়ে বিভিন্ন দেওয়ালে আচ্ছাদিত। চিত্রগুলোর সামনে দাঁড়িয়ে কিছু ছবি ও সেলফি তুলেছি’ বলে জানান তারা। এসব শুধু সাধারন জনগনকে নয়, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মনোমুগ্ধকর এসব চিত্রের সামনে ছবি ও সেলফি তুলছেন। জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ আহমেদ জানান, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনা অনুসারে আমরা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই আয়োজন করেছি। ছাত্রলীগের ৬৯তম ‘প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে নতুন চমক বা নতুনত্বের কথা আমাদের দেয়াল লিখন ও শ্লোগানেই প্রকাশ পাচ্ছে। আমরা নিজেরাই এসব চিত্র ফুটিয়ে তুলছি। মেধা ও মননে উদ্বুদ্ধ হয়ে শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবিই ফুটে উঠবে এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে যোগ করেন তিনি।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category