,

‘রাহুল গান্ধী বলতে শিখেছেন, ভূমিকম্পের আশঙ্কা নেই’

শংকর মৈত্র্য, নয়াদিল্লী প্রতিনিধিঃ যে দিন থেকে ‘কংগ্রেসের যুব নেতা’ রাহুল গান্ধী কথা বলতে শিখেছেন, সে দিন থেকে আমার খুশির আর সীমা নেই। আজ বৃহস্পতিবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজেই এ কথা জানালেন।

কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধীকে এ দিন তীব্র কটাক্ষ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকালই গুজরাতের মেহসানায় এক জনসভায় দাঁড়িয়ে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আনেন রাহুল। সহারা এবং আদিত্য বিরলা গোষ্ঠীর কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা ঘুষ নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি-এমন দাবি করেন রাহুল। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই পাল্টা আক্রমণ মোদির। রাহুলকে কটাক্ষ করে তার মন্তব্য, ভূমিকম্প হওয়ার আর কোনও আশঙ্কা নেই।

নিজের নির্বাচনী ক্ষেত্র বারানসিতে বৃহস্পতিবার একটি কর্মসূচিতে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী। সেই মঞ্চ থেকেই রাহুল গান্ধীকে এ দিন তিনি কটাক্ষ করেছেন। তিনি বলেছেন, ওদের (কংগ্রেসের) এক যুব নেতা আছেন, তিনি শিখছেন কিভাবে ভাষণ দিতে হয়। যখন থেকে তিনি কথা বলতে শিখলেন, তখন থেকে আমার খুশির আর সীমা নেই।

সংসদের শীতকালীন অধিবেশন চলাকালীন রাহুল গান্ধী মন্তব্য করেছিলেন, সংসদে যদি তাকে বলতে দেওয়া হয়, তাহলে ভূমিকম্প হবে। প্রধানমন্ত্রী মোদি সেই প্রসঙ্গ টেনে বৃহস্পতিবার বলেছেন, যদি তিনি মুখ না খুলতেন, তা হলে একটা ভূমিকম্প হতেও পারতো।… এটা ভাল যে তিনি কথা বলতে শুরু করেছেন। আমরা এখন জানি যে ভূমিকম্প হওয়ার আর কোনও আশঙ্কাই নেই।

সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শেষ হওয়ার কয়েক দিন আগে রাহুল গান্ধী অন্য বিরোধী দলগুলিকে সঙ্গে নিয়ে আয়োজিত এক যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করেছিলেন, তাকে সংসদে বলতে দেওয়া হচ্ছে না।

তিনি বলেছিলেন, আমার ঠোঁটের ভাষা পড়ুন। আমার কাছে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত দুর্নীতির তথ্য রয়েছেন। সেই তথ্য আমি সংসদে তুলে ধরতে চাই। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী ভয় পেয়েছেন। আমাকে সংসদে বলতে দেওয়া হচ্ছে না।

সংসদে শেষ পর্যন্ত বলার সুযোগ আর পাননি রাহুল গান্ধী। তবে বুধবার নরেন্দ্র মোদীর নিজের রাজ্যে গিয়ে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির বিস্ফোরক অভিযোগ আনেন রাহুল। বিজেপির তরফে বুধবারই রাহুলের সেসব মন্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা হয়েছিল। আজ নরেন্দ্র মোদি নিজেও তা নিয়ে মুখ খুললেন।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category