,

কিংবদন্তি আবদুল গফুর হালী আর নেই

চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রামের আঞ্চলিক, ভান্ডারী ও মরমি গানের কিংবদন্তী শিল্পী ও গীতিকার আবদুল গফুর হালী আর নেই। বুধবার ভোরে চট্টগ্রামের মাউন্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  তিনি ইন্তেকাল করেন।ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন। 

আবদুল গফুর হালী দীর্ঘ ৬০ বছরের বেশি সময় ধরে একটানা মাইজভান্ডারী গান, মরমি গান এবং চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষার গান লিখে সারা দেশেই খ্যাতি অর্জন করেন। তার লেখা ও সুর করা গান গেয়ে বিখ্যাত হয়েছেন প্রয়াত শেফালী ঘোষ, শ্যাম সুন্দর বৈষ্ণবসহ, বর্তমান সময়ের সন্দীপন, শিরিনসহ  অনেক শিল্পী। আবদুল গফুর হালীর গান নিয়ে জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশিত হয়েছে গবেষণাগ্রন্থ।

মৃত্যুকালে আবদুল গফুর হালীর বয়স হয়েছির ৮৮ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। তিনি দুই ছেলে, দুই মেয়ে ও অসংখ্য ভক্ত-গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার বড় ছেলে আব্দুল খালেক, ছোট ছেলে হালী নুর, বড় মেয়ে ফরিদা বেগম, ছোট মেয়ে চেমন আরা, নাতনি ফেরদৌস হালী একজন সংগীত শিল্পী।

তার মৃত্যুতে চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধূরী, পিএইচপি পরিবারের চেয়ারম্যান সুফি মিজানুর রহমান, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী শোক প্রকাশ করেছেন।

গফুর হালীর মরদেহ বুধবার নগরীর নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটির পিএইচপি হাইটসে রাখা হবে। বৃহস্পতিবার বাদ জোহর ফটিকছড়ির মাইজভান্ডার দরবার শরীফে প্রথম জানাজা, জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ময়দানে বাদ মাগরিব দ্বিতীয় জানাজা এবং শুক্রবার নিজ গ্রাম পটিয়ার রশিদাবাদ ইউনিয়নের শোভনদন্ডীতে বাদ জুমা তৃতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

 

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category