,

মাঠে দুই প্রধান দলের নেতারা প্রচারণায় তৃণমূলে প্রাণচাঞ্চল্য

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্বাচনী প্রচারণা আরও গতিশীল হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির ডজনখানেক নেতা প্রতিদিন নারায়ণগঞ্জে আসছেন। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন। কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে পেয়ে প্রাণচঞ্চলতা এবং আত্মবিশ্বাস ফিরে এসেছে তৃণমূলের কর্মীদের মধ্যে। বিশেষ করে বিএনপির নেতারা বেশ উজ্জীবিত। অপরদিকে আওয়ামী লীগ নেতারাও সকল দ্বিধাদ্বন্দ্ব ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আটঘাট বেঁধে নৌকার পক্ষে মাঠে নেমে পড়েছেন। শুনছেন মানুষের নানা সমস্যার কথা। তাদের দলীয় প্রার্থী বিজয়ী হতে পারেলে এসব সমস্যা সমাধান করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। তবে নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালে আইভী উন্নয়নের আশ্বাস দিলেও সাখাওয়াত ছিলেন আইভীর বিরুদ্ধে অভিযোগে ব্যস্ত।

গত রোববার গণসংযোগে গিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, গত পাঁচ বছরে সিটি করপোরেশনের ৭০ ভাগ উন্নয়নের কাজ করেছি। বাকি সমস্যাগুলো আমরা চিহ্নিত করেছি। এগুলো শর্ট টাইম, মিড টাইম এবং লং টাইম পরিকল্পনার মাধ্যমে শেষ করবো।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, সরকারদলীয় প্রার্থী গ্যাস, বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিচ্ছেন যা বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। তিনি ১৩ বছর দায়িত্ব পালন করে এসব সমস্যা সমাধান করতে পারেন নাই, নির্বাচিত হলে এসব সমস্যা সমাধান করবেন এই ফাঁকা বুলি মানুষ বিশ্বাস করে না।

রোববার আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী শহরের ১৩ ও ১৫ নম্বর ওয়ার্ড ইসদাইর, মাসদাইর, জামতলা, গলাচিপা, উকিলপাড়া, ম-লপাড়া, টানবাজার, শাহাপাড়া, সুতারপট্টিসহ বিভিন্ন এলাকার ভোটারদের সাথে গণসংযোগ করেন এবং প্রচারণা চালান। এ সময় আইভী সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচনের পরিবেশ খুব ভালো আছে। যেখানে যাচ্ছি সেখানেই ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। নারায়ণগঞ্জে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। উন্নয়ন প্রক্রিয়া সম্পর্কে আইভী বলেন, নির্বাচিত হতে পারলে আমার চলমান কাজগুলো শেষ করবো। সিটি কপোরেশনের সমস্যাগুলো চিহ্নিত করেছি আমরা। এগুলো শর্ট টাইম, মিড টাইম এবং লং টাইম পরিকল্পনা নিয়ে সমাধান করবো। একটা ভিশন আছে, সিটি করপোরেশনের সেই ভিশনগুলোর উপরেই আমি বেশি মনোযোগী হবো। গ্যাস এবং পানি সমস্যা সমাধানে কি উদ্যোগ নেয়া হবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, আসলে গ্যাস এবং পানির দায়িত্ব সিটি করপোরেশনের নয়। গ্যাসের সমস্যা একটু আছে, আমি বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি, এখানে গ্যাসের চাপ হয়তো কিছুটা কমে গেছে কিন্তু গ্যাসের কাজ চলছে। নারায়ণগঞ্জ অঞ্চলে পানি ঠিক আছে। সিদ্ধিরগঞ্জে পানির একটু সমস্যা আছে। এটা ওয়াসা দেখবে। এই কাজটিকে এগিয়ে নিতে যতটুকু প্রয়োজন আমরা সহযোগিতা করবো। সড়ক উন্নয়নের ব্যাপারে তিনি বলেন, পৌরসভার আমল থেকেই আমি প্রতিটি সড়ক এবং ড্রেন নির্মাণ করেছি। পরে সড়ক এবং ড্রেনগুলোকে আরও মজবুত এবং চওড়া করেছি। রোববার আইভীর পক্ষে প্রচারণা চালান আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার কাজী জাফরউল্লাহ সাংগঠনিক সম্পাদক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল আলম চৌধুরী নওফেল, এনামুল হক শামীম, পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, মারুফা আক্তার পপি, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইসহাক আলী খান পান্না, আনোয়ার হোসেন এবং মহিলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল।

বিএনপির প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান গত রোববার নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর, কালীরবাজার, খানপুর মেট্রোহল, সিদ্ধিরগঞ্জের বাতেনপাড়া, পাইনাদী, মিজমিজি, টিসি রোড, পূর্বপাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও প্রচারণা চালান। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচন নিয়ে মানুষের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। সরকার এবং নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু, অবাধ এবং নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন পরিচালনা করলে সকল ভয়ভীতির ঊধর্ে্ব উঠে সাধারণ মানুষ ভোটকেন্দ্রে গিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারলে আমার বিজয় সুনিশ্চিত।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী মানুষকে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে এই বলে যে, নির্বাচিত হতে পারলে গ্যাস-বিদ্যুতের সমস্যা সমাধান করবেন।

যিনি পৌরসভা এবং সিটি করপোরেশনে ১৩ বছর দায়িত্ব পালন করে এসব সমস্যার সমাধান করতে পারেন নাই তার এই ফাঁকা বুলি মানুষ বিশ্বাস করে না। মানুষ পরিবর্তন চাচ্ছে। আমরা সেই পরিবর্তনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। নারায়ণগঞ্জবাসী যদি আমাকে নির্বাচিত করেন তাহলে আমি আধুনিক সুবিধা সংবলিত একটি নারায়ণগঞ্জ গড়ে তুলবো। সিটি করপোরেশনকে কাবলিওয়ালার ভূমিকায় দেখতে চাই না। নারায়ণগঞ্জবাসীর হোল্ডিং ট্যাঙ্ স্বাভাবিক পর্যায়ে নিয়ে আসবো। ব্যাবসায়ীদের ট্রেড লাইসেন্স ফি কমিয়ে আনবো। শীতলক্ষ্যা সেতু নির্মাণের মাধ্যমে বন্দর এবং নারায়ণগঞ্জ দুই পাড়ের মধ্যে সেতুবন্ধনের সৃষ্টি করবো। সন্ত্রাস এবং মাদকের বিরুদ্ধে নাগরিক ঐক্য গড়ে তুলে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলব।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category