,

র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত-৪

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনার ঈশ্বরদীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহতের সংখ্যা আরো একজন বাড়ল। এই নিয়ে বন্দুকযুদ্ধে এই ঘটনায় নিহতের সংখ্যা দাঁড়াল ৪।

শুক্রবার দুপুরের দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এর আগে আজ ভোরে বন্দুকযুদ্ধের এই ঘটনায় তিনজন নিহত হয়। এ ছাড়া এই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ৩ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। বন্দুকযুদ্ধে দুই র‌্যাব সদস্যও আহত হয়েছেন।

আহত র‌্যাব সদস্যরা হলেন ডিএডি আব্দুল ওয়াদুদ ও এসআই আরাফাতুল হক খান। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

নিহতরা হলেন- ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার কাটনি গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে বাচ্চু মিয়া (৩৫), একই উপজেলার তৃষ্ণামত দৌলা গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে রুস্তম আলী (৩০), পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার কবিরুল ইসলামের ছেলে মেহেদী হাসান (২৫) ও চাঁদপুরের মতলব উপজেলার দক্ষিণ বড়চর গ্রামের বিল্লাল হোসেনের ছেলে হানিফ মিয়া (২৫)।

র‌্যাব-১২ পাবনা কোম্পানি কমান্ডার এএসপি বীনা রানী দাশ জানান, জঙ্গি তৎপরতা নিধন ও তাদের তথ্য সংগ্রহে ২৪ নভেম্বর পাবনায় অবস্থান করছিল র‌্যাব-১২ এর সিপিসি-৩, টাঙ্গাইলের একটি টহল টিম। শুক্রবার রাত ২টার দিকে সিপিসি-৩ এর কোম্পানি কমান্ডার মুহম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী গোপন সংবাদে জানতে পারেন একদল সশস্ত্র ডাকাত ঈশ্বরদীর জয়নগর পিডিবি গেট এলাকায় মেসার্স বাদশা এজেন্সি নামক একটি চাতালে ডাকাতির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এ বিষয়টি তারা পাবনা র‌্যাবকেও জানায়। এরপর র‌্যাব-১২ ও পাবনা ক্যাম্পের দুইটি আভিযানিক দল রাত সাড়ে ৩টার দিকে জয়নগর পিডিবি গেট এলাকায় অভিযানে যায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দলের সদস্যরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে অতর্কিত গুলিবর্ষণ শুরু করে। র‌্যাব সদস্যরাও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে। গোলাগুলির এক পর্যায় ডাকাতদল ছত্রভঙ্গ হয়ে পিছু হটে।

এ সময় ঘটনাস্থলে তল্লাসি চালিয়ে তিন ডাকাত সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। অপরদিকে দুটি ট্রাকে করে কয়েক ডাকাত দ্রুত পালানোর চেষ্টা করে। পরে বরইচারা এলাকা থেকে এলাকাবাসীর সহায়তায় চাল ভর্তি একটি ট্রাক ও একটি খালি ট্রাক উদ্ধার করে র‌্যাব। এ সময় আহতাবস্থায় চার ডাকাত সদস্যকে আটক করা হয়। তাদের পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ দুপুরে মারা যায় আরো একজন।

খবর পেয়ে র‌্যাব-১২ সিও শাহাবুদ্দিন খান ও অতিরিক্ত ডিআইজি (রাজশাহী রেঞ্জ) আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এই ঘটনায় দুটি ট্রাক, ট্রাকে থাকা দেড় হাজার কেজি মিনিকেট চাল, একটি পিস্তল, দুটি রিভলবার, ছয়টি তাজা গুলি ও একটি ম্যাগজিনসহ বেশকিছু দেশীয় অস্ত্র ও ডাকাতির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় দুই র‌্যাব সদস্য আহত হন। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

র‌্যাবের দাবি, হতাহতরা আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সদস্য। তারা দেশের বিভিন্ন স্থানে ডাকাতি করে থাকে। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় মামলা হয়েছে।

 

 

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category