,

লিবিয়ায় ৬ বাংলাদেশী অপহরণ; ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায়

অর্পন মাহমুদ, লিবিয়াঃ লিবিয়ায় নিখোঁজ ৬ বাংলাদেশী শ্রমিক নিখোঁজ হওয়ার ৫ দিন পর মুক্তিপণ দিয়ে অবশেষে মুক্তি পেয়েছে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে । অপর দিকে মুক্তিপণের মোটা অংকের টাকা যোগাড় করতে গিয়ে ধানি জমি ছাড়াও সহায়সম্বল বিক্রি করতে হয়েছে অপহ্নতের পরিবারের সদস্যদের । এদিকে মুক্তি পাওয়ার পর আবার অপহরণের ভয়ে প্রবাসে চরম আতংকিত হয়ে পড়েছে ঐ ৬ বাংলাদেশী । এর আগে গত বুধবার লিবিয়ার জোয়ারা থেকে ত্রিপলী যাওয়ার পথে অপহরণের শিকার হয় তারা । অপহরণের পর মুক্তিপণ পাওয়া বাংলাদেশীরা জানায়, ঘটনার দিন সকালে লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপলীতে বাংলাদেশ দূতাবাসে যাওয়ার পথে গারিয়ান ও আজিজিয়ার মধ্যবতি স্থানের রাস্তার এক চেকপোষ্টে তল্লাসীর নামে তাদের ধরে নিয়ে যায় কয়েক জন পুলিশের পোশাক পরা সশস্ত্র যুবক । প্রথমে তাদের গাড়ি থেকে নামিয়ে পাশের এক রুমে আটকে রাখে । পরে পাশের একটি নির্জন এলাকায় তাদের নিয়ে গেলে সেখানে অপহরকারী সদস্য ২ বাংলাদেশী শরিয়তপুরের নাড়িয়া থানার ড্রমমোরা ইউনিয়নের নন্দগ্রামের সুজন ওরফে কালা ইমরান ও মাছুদ ওরফে মাসুম ঐ ৬ বাংলাদেশীকে আরেকটি রুমে আটকে রেখে ।

কেড়ে নেয়া হয় কাছে থাকা মোবাইলসহ কয়েক শ দিনার । এক দিন আটক রাখার পর ৬ শ্রমিকের মুক্তিপণের দাবিতে নির্যাতন চালাতে থাকে ২ বাংলাদেশী অপহরণকারী । অমানষিক নির্যাতনে তারা দেশে পরিবারের নম্বর দিতে বাধ্য হয় । ৬ জনের পরিবারের সদস্যদের নম্বর নেয়ার পরে জামাল, মাসুদ ও ইমরান নামে লিবিয়া ( ০৯১০২৩৯৮৩৭ ও ০৯১০৮৩২৪০৩ ) নম্বর থেকে ফোন করে প্রত্যেক পরিবারের কাছে ১ লাখ টাকা করে মুক্তিপণ দাবি করে এবং শেষ পর্যন্ত ৩ দিনের মধ্যে ৭০ হাজার টাকা মুক্তিপণ না দিলে ঐ ৬ জন কে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয় ঐ নম্বর নম্বর গুলো থেকে । এর পর বাংলাদেশ থেকে নাম না জানিয়ে ০১৭৭৮৯২৩৪৯৪ মোবাইল নম্বর থেকে ফোন করে টাকা দিতে বলে ।

এঘটনার পর দিশে হারা হয়ে পড়ে ঐ ৬ শ্রমিকের পরিবার । তারা কেউ সুদের উপর কেউ বা ধানি জমি পানির দামে বিক্রি করে টাকা যোগাড় করতে থাকে । পরে পরিবার গুলো কাছে , একে একে ০১৫৫১২৪৪৬১৯, ০১৭২৮৬৭১৮৩৫, ০১৬৩০৪৫৫৬৬৮, ০১৮১৭৩০০০৫১, ০১৭৭৮৯২৩৪৯৪, ও ০১৯৪৬৭৭৭১৮৯, ০১৯৪৬৭৭৭১৯০, ০১৭৩২৮৪৬৩৮০ এই বিকাশ নম্বর গুলোতে ২ লাখ ৮০ হাজার এবং ০১৭৭৮৯২৮৪৯৪ এই নম্বরে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা বিকাশ করতে বলা হয় । পরে অপহ্নতের পরিবার গুলো ঐ নম্বর গুলোতে ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা বিকাশ করলে এক দিন পর লিবিয়া থেকে ছেড়ে দেয়া হয় ৬ বাংলাদেশী কে ।

সন্ত্রাসীদের হাত থেকে ফিরে আসা লিবিয়ায় জোয়ারা এলাকায় বলদিয়া ( ক্লিনার ) কোম্পানীতে কর্মরত বাংলাদেশী শ্রমিক কুষ্টিয়ার সাহাবুল হোসেন, গাজীপুরের আলম শেখ, টাংগাইলের আবুল হাসেম, রফিক, খোকন, নুরুল আলম ও কোম্পানীর গাড়িচালক জসিম উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, তাদের ছেড়ে দেয়ার আগে বাংলাদেশী অপহরণকারীরা হুমকি দিয়ে বলেছে, বিষয়টি জানা জানি করলে আবারও ধরে নিয়ে তাদের প্রানে মেরে ফেলা হবে । এমনই হুমকিতে এখনো চরম আতংক রয়েছে ওই ৬ বাংলাদেশী ।

এদিকে লিবিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের নিজস্ব পেজে গারিয়ান এলাকা থেকে সুজন নামের এক অপহরনকারিকে আটক করা হয়ে বলে তার ছবি প্রকাশ করেছে । তাদের অপহরণকারী ঐ সুজন নয় বলেও জানান তারা ।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category