,

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচন ২৬ নভেম্বর, রিট স্থগিত

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচন অনুষ্ঠানে কোন বাধা রইল না। আগামী ২৬ নভেম্বর কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের ভুয়া যুগ্ম সম্পাদক পরিচয় দিয়ে করা মাহমুদ হাসানের রিট স্থগিত করে দিয়েছে সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগ।
আজ মঙ্গলবার দুপুরে আপিল বিভাগের বিচারক এ রায় দেন। এদিকে এ রায়ের পর কুষ্টিয়ার সর্বস্তুরের সাংবাদিকদের মধ্যে প্রাণ ফিরে এসেছে।
জানা গেছে, গত ১৬ নভেম্বর মহামান্য হাইকোর্টে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন স্থগিত চেয়ে মিথ্যা যুগ্ম সম্পাদক পরিচয় দিয়ে একটি রিট দায়ের করেন মাহমুদ হাসান নামের এক ব্যাক্তি। ২০১৪ সালের নির্বাচনে মাহমুদ হাসান ‘বিপ্লব প্যানেলের পোলিং এজেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করনে। ওই নির্বাচন বিপ্লবদের ভরাডুবি হয়। সর্বশেষ নির্বাচনে মাহমুদ সদস্য পদে নির্বাচন করার জন্য মনোনয়ন জমা দেন। তারপরেও হাইকোর্টে সব তথ্য গোপন করে জাল কাগজপত্র তৈরি করে একটি রিট দায়ের করেন।
এরপর হাইকোর্ট ৪ সপ্তাহের জন্য নির্বাচনের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়। এ রিটের আদেশ স্থগিত চেয়ে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আল মামুন সাগর সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগে তথ্য উপাত্ত তুলে ধরে আবেদন করেন।
দুপুরে শুনানি শেষে সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি সাঈদ মাহমুদ হোসেন স্থগিত করে দেয়। এ স্থগিতাদেশের ফলে নির্বাচন করতে আর কোন বাধা রইল না। বিবাদি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট প্রবীর নিয়োগী ও ব্যারিষ্টার শুভ্র চক্রবর্তী।
মামলার আইনজীবী ব্যারিষ্টার শুভ্র চক্রবর্তী জানান, আদালতে তারা সব তথ্য উপাত্ত তুলে ধরেন। এরপর আদালতের বিচারক রিট স্থগিত করে দেয়। এখন নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যাপারে আর কোন বাঁধা নেই।’
কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক আল মামুন সাগর জানান,‘ মাহমুদের করা রিট মহামান্য আদালত স্থগিত করে দিয়েছে। প্রেসক্লাবের যে গনতান্ত্রিক যাত্রা একটি কুচক্রি মহল রুদ্ধ করতে চেয়েছিল। সব সাংবাদিকের প্রচেষ্টায় ক্লাবের গনতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকবে। ২৬ তারিখের নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য সবাইকে ্ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। এছাড়া তিনি বলেন, মাহমুদ কোন কালেই কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবে নির্বাচিত হয়ে আসেনি। ২০১৪ সালেই সে প্রথম সদস্য পদ লাভ করে। ওই নির্বাচনে সে পোলিং এজেন্ট ছিল।’
এদিকে হাইকোর্টর রিট আপিল বিভাগে স্থগিত হওয়ায় জেলার সাংবাদিকদের মাঝে প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। যুগান্তরের জেলা প্রতিনিধি এএম জুবায়েদ রিপন জানান, আদালত যুগান্তকারি রায় দিয়েছে। এ রায়ের মাধ্যমে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচন অনুষ্ঠানে কোন বাঁধা নেই।
উল্লেখ, ২০১৪ সালের আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যস্থতায় ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ঐতিহাসিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বিপ্লব পরিষদকে পরাজিত করে মাহবুব-সাগর প্যানেল জয়লাভ করে। সংবিধান অনুযায়ী ২০১৬-১৮ সালের দ্বিবার্ষিক নির্বাচনের তফশিল ঘোষনা করা হয়েছে। এ নির্বাচনে রশীদ চৌধুরী-সাগর প্যানেল ছাড়াও বিপ্লব-হালিম প্যানেল অংশ নিচ্ছে। আগামী ২৬ নভেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category