,

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ঢাকায়

ডেস্ক রিপোর্ট : দুই দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ঢাকায় পৌঁছেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

শুক্রবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি চীনের প্রেসিডেন্টের উড়োজাহাজটি বাংলাদেশের আকাশ সীমায় ঢোকার পর তাকে পাহারা দিয়ে বিমানবন্দরে নিয়ে আসে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর কয়েকটি আকাশযান।

বিমানবন্দরে শি জিনপিংকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর ২১ বার তোপধ্বনির পর সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর সদস্যদের সমন্বয়ে গঠিত একটি চৌকস দল শি জিনপিংকে গার্ড অব অনার প্রদান করে।

বিমানবন্দরে লাল গালিচা সংবর্ধনার পর তিনি উঠবেন বিমানবন্দর সড়কের লা মেরিডিয়ান হোটেলে। তার নিরাপত্তার জন্য ২৪ ঘণ্টা ওই সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করবে পুলিশ। চীনের প্রেসিডেন্টের সফর উপলক্ষে ঢাকাকে দৃষ্টিনন্দন করে সাজানো হয়েছে।

শি জিনপিং কম্বোডিয়া থেকে সরাসরি বাংলাদেশে এলেন। দুই দিনের বাংলাদেশ সফরে চীনের প্রেসিডেন্ট তার দেশের ২৪ সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন তিনজন স্টেট কাউন্সিলর, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাণিজ্যমন্ত্রী।

চীন ও বাংলাদেশ তাদের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে বহুমাত্রিকতা আনতে সহযোগিতার ক্ষেত্র সম্প্রসারিত করছে। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ঢাকা সফরে অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সহযোগিতার পাশাপাশি যোগাযোগ, সন্ত্রাসবাদ দমন, সামুদ্রিক অর্থনীতি ও তথ্যপ্রযুক্তির বিষয়গুলো বিশেষ গুরুত্ব পাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

চীনের প্রেসিডেন্টের এই সফরে দুই দেশের মধ্যে ২৫টির মতো চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সইয়ের জন্য চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার নিজ মন্ত্রণালয়ে জানিয়েছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী।

চীনের প্রেসিডেন্টের এই সফরে দুই দেশের মধ্যে ২৫টির মতো চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সইয়ের জন্য চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার নিজ মন্ত্রণালয়ে জানিয়েছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী।

হোটেল থেকে বিকেল ৩টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যাবেন চীনের প্রেসিডেন্ট। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বিকেল ৪টা থেকে ৪টা ২০ মিনিটের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের চামেলী হলে আনুষ্ঠানিকভাবে যৌথ বিবৃতি দেবেন। এ সময়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে হোটেলে ফিরলে সেখানে তার সঙ্গে দেখা করতে যাবেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মিলিত হবেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান মো. আবদুল হামিদ ও শি জিনপিং। সফররত প্রেসিডেন্টের সম্মানে দরবার হলে নৈশভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি।

শনিবার সকালে সাভারে স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন চীনের প্রেসিডেন্ট। এর পরপরই ঢাকা ছেড়ে ভারতের উদ্দেশে রওনা হবেন তিনি।

 

Facebooktwitterlinkedinyoutube
Facebooktwitterredditpinterestlinkedin


     More News Of This Category